১দিনের টুরে ঢাকা-আলিকদম-থানচি- বড়পাথর ভ্রমন

অফিসে মাত্র ১দিন সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় আমি বরাবরই ১দিনের টুরে অভ্যস্ত এবং এভাবে অনেক জায়গায় গিয়েছি। অনেকদিন ধরেই প্ল্যান ছিল বর্ষার পর পাহাড়ি কোন এলাকায় ঘুরতে যাব।হুট করেই মাথায় ঢুকলো থানচি হয়ে বড়পাথর যাওয়া তাও আবার ১দিনের টুরে !!! টিওবি র অনেক পোস্ট পড়ে যা বুঝলাম বান্দরবান দিয়ে এটা কোনভাবেই সম্ভব না😏😏 (এখন পর্যন্ত কখন ও বান্দরবান ও যায়নি 😣😣) তবে আলিকদম দিয়ে গেলে সম্ভব।

Image may contain: cloud, sky, mountain, outdoor and nature

আমি ঠিক ৩জনকে ম্যানেজ ও করে ফেললাম এই টুরে যাওয়ার জন্যে 😁😁 যেই ভাবা সেই কাজ, গত বৃহস্পতিবার রাতে আলিকদমের হানিফ বাসে রওনা দিয়ে দিলাম ( আলিকদম এখনো তেমন জনপ্রিয় পর্যটন এলাকা না হওয়াতে টিকেট খুব সহজে পাওয়া যায়) , বাস রাত ৯.৩০এ গাবতলী থেকে ছেড়ে ভোর ৭.৩০ এ আলিকদম নামিয়ে দিল। নাশতা সেরে সকাল ৮ টায় ২টি বাইক (৬০০ টাকা ২ জন থানচি পর্যন্ত) এ করে থানচির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়ে দিলাম।আলিকদম শহর থেকে ১০কিমি দুরে আর্মি চেকপোস্টে নাম এন্ট্রি করার পর থেকে প্রতিটি পাহাড়ের বাকে যেন আমাদের জন্যে নতুন নতুন চমক অপেক্ষা করছিল😍😍😍।ডিম পাহাড়ের রাস্তায় যখন উঠলাম , সে এক অন্যরকম অনুভুতি কাজ করছিল পুরো থানচি তা দেখা যাচ্ছিল মেঘের ফাক দিয়ে আর মেঘগুলো তুলার মত ভেসে বেরাচ্ছিল। এভাবে পুরো রাস্তায় আমরা থামিয়ে থামিয়ে দৃশ্য দেখে দেখে ১০টাই থানচি বাজার এ পৌছে যায়। বাজার থেকে ২৫০০ টাকায় বোট (বড়পাথর পর্যন্ত) আর ৮০০ টাকায় গাইড ঠিক করে থানায় জিডি আর বিজিবি থেকে পারমিশন নিতে নিতে ১১ টা বেজে যায়।

Image may contain: mountain, sky, cloud, tree, outdoor, nature and water

সাংগু নদীর দুই পাশের অপরুপ দৃশ্য দেখতে দেখতে ১.৫ ঘন্টায় বড়পাথর জায়গায় পৌছে গেলাম।আমাদের গাইড ওখানেই এক খুমি হোটেল এ দুপুরের লাঞ্চের ব্যবস্থা করে দেয় 😀😀। ওই জায়গায় আমরা প্রায়ই ১.৫ ঘন্টা থেকে ২টার দিকে রওনা দেয়, এবার স্রোতের অনুকুলে থাকায় মাত্র ৫০মিনিটে পৌছে যায় থানচি বাজার এ😳😳😳 আমাদের বাইকগুলো আমাদের জন্যে আগে থেকেই অপেক্ষা করছিল ( যদিও ওখানে বাইক পাওয়া যায়ই,তবু্ও ব্যাক করা লাগবে বলে আমরা রিস্ক নেয়নি), থানচি চেক পয়েন্ট এ ফ্রেশ হয়ে ৩.৪৫ এর দিকে রওনা দেই আলিকদমের উদ্দেশ্যে। গোধুলি বেলাই এবার যেন পাহাড় আমাদের তার অন্যরুপ দেখিয়ে দিল। এবার ও বিভিন্ন জায়গায় থামাতে ৫.৪০এর দিকে আলিকদমে পৌছে যায়। যথারীতি রাত ৭টায় শ্যামলী বাসে উঠে ভোর ৫.৩০ টায় ঢাকায় নেমে যায়

জনপ্রতি খরচঃ
বাস ভাড়াঃ ১৭০০ টাকা
বাইক ভাড়াঃ ৬০০
বোট ভাড়াঃ ৮০০
অন্যান্য ঃঃ ৫০০
টোটাল ঃঃ ৩৬০০

Image may contain: cloud, sky, mountain, outdoor, nature and water

টিপসঃ আর্মি চেকপোস্টে আর বিজিবি এর জন্যে এনআইডি এর ফটোকপি নেয়া ভাল, নাহলে যেকোন প্রকার ফটো আইডি রাখা বাধ্যতামূলক।

দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।

সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।

73026431_499309080801214_5121852103681114112_n
74615407_604237516988756_3060769724364226560_n

Tourplacebd.com