বালিয়াটি জমিদার বাড়ি, মানিকগঞ্জ

বালিয়াটি প্রাসাদ বাংলাদেশের ঢাকা বিভাগের অন্তর্গত মানিকগঞ্জ জেলার সদর থেকে আনুমানিক আট কিলোমিটার পশ্চিমে এবং ঢাকা জেলা সদর থেকে পয়ত্রিশ কিলোমিটার দূরে সাটুরিয়া উপজেলার বালিয়াটি গ্রামে অবস্থিত।

এটি বাংলাদেশের ১৯ শতকে নির্মিত অন্যতম প্রাসাদ। একে বালিয়াটি জমিদার বাড়ি বা বালিয়াটি প্রাসাদ বলেও ডাকা হয় মোট সাতটি স্থাপনা নিয়ে এই জমিদার বাড়িটি অবস্থিত। বালিয়াটি জমিদার বাড়ির সবগুলো ভবন একসাথে স্থাপিত হয় নি।

এই প্রাসাদের অন্তর্গত বিভিন্ন ভবন জমিদার পরিবারের বিভিন্ন উত্তরাধিকার কর্তৃক বিভিন্ন সময়ে স্থাপিত হয়েছিল। বর্তমানে কেন্দ্রীয় ব্লকটি যাদুঘর। এই প্রাসাদটি বাংলাদেশ প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগ কর্তৃক সংরক্ষিত ও পরিচালিত।

Image may contain: sky, tree, plant and outdoor

**ইতিহাস –

“গোবিন্দ রাম সাহা” বালিয়াটি জমিদার পরিবারের গোড়াপত্তন করেন। ১৮ শতকের মাঝামাঝি সময়ে তিনি লবণের বণিক ছিলেন। জমিদার পরিবারের বিভিন্ন উত্তরাধিকারের মধ্যে “কিশোরিলাল রায় চৌধুরী, রায়বাহাদুর হরেন্দ্র কুমার রায় চৌধুরী তৎকালীন শিক্ষাখাতে উন্নয়নের জন্য বিখ্যাত ছিলেন। ঢাকার জগন্নাথ কলেজ (বর্তমানে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়) প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন কিশোরিলাল রায় চৌধুরীর পিতা এবং যার নামানুসারে উক্ত প্রতিষ্ঠানের নামকরণ করা হয়।

বালিয়াটি জমিদার বাড়ি নামে পরিচিত, এই প্রাসাদ চত্বরটি প্রায় ১৬,৫৫৪ বর্গমিটার জমির উপর ছড়িয়ে থাকা ৭টি দক্ষিণমুখী দালানের সমাবেশ। এই দালানগুলো খ্রিষ্টীয় মধ্য ঊনবিংশ শতক থেকে বিংশ শতকের প্রথমভাগের বিভিন্ন সময়ে জমিদার পরিবারের কয়েকজন সদস্যের দ্বারা নির্মিত হয়েছিল। সামনের চারটি প্রসাদ ব্যবহৃত হত ব্যবসায়িক কাজে। এই প্রসাদের পেছনের প্রাসাদকে বলা হয় অন্দর মহল যেখানে বসবাস করত তারা।

Image may contain: outdoor

— —

** যেভাবে যাবেনঃ

গাবতলী থেকে এস.বি লিংক এর কাউন্টার বাসে করে সরাসরি মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া। ভাড়া ৭৫ টাকা। সময় লাগে প্রায় আনুমানিক ২.৩০/৩ ঘন্টা। এরপর সাটুরিয়া থেকে অটো তে করে সরাসরি বালিয়াটি জমিদার বাড়ি ভাড়া ১০ টাকা ।

— —

**প্রবেশ ফি/ টিকেটঃ জনপ্রতি ২০ টাকা। — —

**বন্ধঃ রবিবার পূর্ণ দিবস এবং সোমবার অর্ধদিবস বন্ধ থাকে।। ** শুক্রবার দুপুর ১২.৩০ থেকে ২.৩০ টা পর্যন্ত বন্ধ থাকে।। নামাজের বিরতি

Image may contain: sky, cloud, tree and outdoor

**খাওয়া দাওয়াঃ

বাস থেকে সাটুরিয়া নেমে স্থানীয় খাবার হোটেল আছে। মোটামুটি ভালো মানের খাবার পাওয়া যায়।

Image may contain: sky, tree, cloud, grass and outdoor

Tourplacebd.com