বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থান পুরান ঢাকার হোসেন দালান

প্রায় ৩০০ বছরের পুরানো ইমামবাড়া বা হোসেনী দালান যা পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত যা শিয়া সম্প্রদয়ের একটি উপসনালয়। অনুমানিক ১৭শ শতকে মোগল সম্রাট শাহজাহানের সময়ে এটি নির্মিত হয়। ভবনটি মূলত কারাবালার প্রান্তরে ঈমাম হোসেনের শাহাদাৎ বরনের স্মরনে নির্মান করা হয়।

যানজট আর ভিড়ের ভয়ে অনেকেই আমরা পুরান ঢাকায় যেতে চাই না। তাই হয়ত অনেক দর্শনীয় স্থানগুলো থেকে যায় অদেখা। তবে যে কোনো ছুটির দিনে যখন যানজটের ভয় নেই, তখন ঘুরে আসতে পারেন পুরান ঢাকার হোসেনী দালান থেকে। বিশেষ করে যারা ইতিহাস ও ঐতিহ্যের অনুরাগী তাদের জন্য খুব আকর্ষণীয় একটি স্থান হোসেনী দালান। প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় / বুয়েট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে খুব বেশী দূরে নয় এই হোসেনী দালান। এই দালানের প্রবেশ দ্বার দিয়ে ঢুকলেই বড় বাগান, শিয়া সম্প্রদায়ের কবর ও মূল স্থাপনা চোখে পড়বে। ভবনের পিছনের দিকে আছে দীঘি। দীঘির পাড়ে বসে কাটাতে পারেন কিছুটা সময়। হোসেনী দালানের বেশির ভাগ ছবি পিছন দিক দিয়ে তোলা। কারন পিছের দিকে ভবনের একটা চমৎকার ভিউ পাওয়া যায়। একটা ছুটির দিন চলে যেতে পারেন।

প্রতিবছর মহরম মাসের ১ ধেকে ১০ তারিখে আশুরা উপলক্ষ্যে জমজমাট হয়ে ওঠে হোসেনী দালান। তখন এখানে নানা রকম আচার অনুষ্ঠান হয়। এখান থেকেই মহরমের তাজিয়া মিছিল বের হয় এবং শহরের বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করে। সেসময় এ এলাকার চারপাশে মেলাও বসে।

জাতীয় জাদুঘরে হোসেনী দালানের একটি চমৎকার রেপ্লিকা রয়েছে যা পুরোটি রূপা দিয়ে তৈরি। হোসেনী দালান ছাড়াও পুরান ঢাকা থেকে ঘুরে আসতে পারবেন আশে পাশের গুরুত্বপূর্ণ ইতিহাসিক স্থাপনা গুলো, যেমন – আহসান মঞ্জিল, লালবাগ কেল্লা ইত্যাদি।

পরিদর্শনের সময়সূচীঃ

প্রতিদিন সকাল ৭.০০ টা থেকে রাত ১০.০০ টা পর্যন্ত খোলা থাকে।

কিভাবে যাবেনঃ

সিএনজি, রিকশা বা টেম্পোযোগে চাখাঁরপুল যাওয়া যায়। ইমামাবাড়া হোসেনী দালান পুরনো ঢাকার নিমতলী ও চানখাঁরপুল এলাকার হোসেনী দালান রোডে অবস্থিত।

দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।

সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।

73026431_499309080801214_5121852103681114112_n
74615407_604237516988756_3060769724364226560_n

Tourplacebd.com