ঘুরে আসুন রাজকান্দি বন ভিটের হাম হাম

রাজকান্দি বন ভিটের অন্যতম একটি দর্শনীয় স্থান হাম হাম !এটি কমলগঞ্জ উপজেলার আরেকটি অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র। হাম হাম ঝর্নায় এ পর্যন্ত গবেষকদের পক্ষ থেকে কোনো অভিযান পরিচালিত হয়নি। সাধারণ পর্যটকেরা ঝর্নাটির নামকরণ সম্পর্কে তাই বিভিন্ন অভিমত দিয়ে থাকেন। কেউ কেউ ঝর্নাটির সাথে গোসলের সম্পর্ক করে “হাম্মাম” (গোসলখানা) শব্দটি থেকে “হাম হাম” হয়েছে বলে মত প্রকাশ করেন। কেউ কেউ মনে করেন, সিলেটি উপভাষায় “আ-ম আ-ম” বলে বোঝানো হয় পানির তীব্র শব্দ, আর ঝরণা যেহেতু সেরকমই শব্দ করে, তাই সেখান থেকেই শহুরে পর্যটকদের ভাষান্তরে তা “হাম হাম” হিসেবে প্রসিদ্ধি পায়।তবে স্থানীয়দের কাছে এটি “চিতা ঝর্ণা” হিসেবে পরিচিত, কেননা একসময় এজঙ্গলে নাকি চিতাবাঘ পাওয়া যেত

Related image


ঝর্ণার যৌবন হলো বর্ষাকাল। বর্ষাকালে প্রচন্ড ব্যাপ্তিতে জলধারা গড়িয়ে পড়ে। শীতে তা মিইয়ে মাত্র একটি ঝর্ণাধারায় এসে ঠেকে। ঝর্ণার ঝরে পড়া পানি জঙ্গলের ভিতর দিয়ে ছড়া তৈরি করে বয়ে চলেছে। এরকমই বিভিন্ন ছোট-বড় ছড়া পেরিয়ে জঙ্গলের বন্ধুর পথ পেরিয়ে এই ঝর্ণার কাছে পৌঁছতে হয়
ঝর্ণায় যেতে হলে কুড়মা বন বিটের চম্পারায় চা বাগান হয়ে যেতে হয়। চম্পারায় চা-বাগান থেকে ঝর্ণার দূরত্ব প্রায় ৭ কিলোমিটার। পথে অত্যন্ত খাড়া মোকাম টিলা পাড়ি দিতে হয় এবং অনেক ঝিরিপথ ও ছড়ার কাদামাটি দিয়ে পথ চলতে হয়।
হাম হাম যাবার পথ এবং হাম হাম সংলগ্ন রাজকান্দি বনাঞ্চলে রয়েছে সারি সারি কলাগাছ, জারুল, চিকরাশি কদম গাছ। এর ফাঁকে ফাঁকে উড়তে থাকে রং-বেরঙের প্রজাপতি। ডুমুর গাছের শাখা আর বেত বাগানে দেখা মিলবে অসংখ্য চশমাপরা হনুমানের। এছাড়াও রয়েছে ডলু, মুলি, মির্তিঙ্গা, কালি ইত্যাদি বিচিত্র নামের বিভিন্ন প্রজাতির বাঁশ!
লক্ষ্য রাখতে হবে হাম হামে আসলে পাহাড় পর্বত পাড়ি দেয়ার মনমানসিকতা অবশ্যই থাকতে হবে!
যারা জানেন না কিভাবে আসতে হয়?

ঢাকা থেকে ছোট একটা বর্ননা দেই:

অনেকেই ট্রেনে ঢাকা হতে শ্রীমঙ্গল এসে নামেন আমি বলবো আপনারা একটা স্টেশন পেছনে নামছেন ভানুগাছ স্টেশন নামেন টাকা ও সময় একটু কমে আসলো।
ঢাকা হতে ট্রেনে ভানুগাছ ২৫০-৩০০ টাকার মধ্যে।
ভানুগাছ হতে কলাবন সিএনজি বা চান্দের গাড়ি ১০০০-১৫০০ টাকা। আপ -ডাউন। সিএনজি হলে ১০০০ টাকার ভিতরে রাখুন
বাকি রাস্তা ট্রেকিং।
বাসে আসলে শ্রীমঙ্গল নামতেই হবে। ৪০০-৫০০ টাকা।
যেটা ভালো মনে করেন ওটা বেচে নিন।
দুটাই ভালো সিদ্ধান্ত তবে একদিনের জন্য আসলে রাতে আসুন আবার রাতে ফিরে যান। ওটা অনুসরন করতে পারেন। কিছু জানার থাকলে কমেন্ট করতে পারেন।

হাম হাম সম্পর্কে কিছু তথ্য সবার জানা। তারপরেও খাবার স্যালাইন, লবন, তেল, (জোকের জন্য) হালকা খাবার, ঢিলে ঢালা কাপড়, শক্ত মনমানসিকতা থাকা অবশ্যই প্রয়োজন।
সাথে একজন গাইড নিতে ভুলবেন না। ২০০-৩০০ টাকার মধ্যে রাখুন।

দৃষ্টি আকর্ষণ : যে কোন পর্যটন স্থান আমাদের সম্পদ, আমাদের দেশের সম্পদ। এইসব স্থানের প্রাকৃতিক কিংবা সৌন্দর্য্যের জন্যে ক্ষতিকর এমন কিছু করা থেকে বিরত থাকুন, অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। দেশ আমাদের, দেশের সকল কিছুর প্রতি যত্নবান হবার দায়িত্বও আমাদের।

সতর্কতাঃ হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ভাড়া ও অন্যান্য খরচ সময়ের সাথে পরিবর্তন হয় তাই ভ্রমণ গাইডে প্রকাশিত তথ্য বর্তমানের সাথে মিল না থাকতে পারে। তাই অনুগ্রহ করে আপনি কোথায় ভ্রমণে যাওয়ার আগে বর্তমান ভাড়া ও খরচের তথ্য জেনে পরিকল্পনা করবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার জন্যে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হোটেল, রিসোর্ট, যানবাহন ও নানা রকম যোগাযোগ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এসব নাম্বারে কোনরূপ আর্থিক লেনদেনের আগে যাচাই করার অনুরোধ করা হলো। কোন আর্থিক ক্ষতি বা কোন প্রকার সমস্যা হলে তার জন্যে ভ্রমণ গাইড দায়ী থাকবে না।

73026431_499309080801214_5121852103681114112_n
74615407_604237516988756_3060769724364226560_n

We will be happy to hear your thoughts

Leave a reply

Tourplacebd.com